Select Page
  • বিচার শেষ পর্যায়ে। সেপ্টেম্বরে রায় হতে পারে।
  • এখন চলছে সর্বশেষ আসামি বাবরের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন।

১৪ বছর আগে এই দিনে, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকায় আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার সমাবেশে ভয়াবহ গ্রেনেড হামলা হয়। ওই ঘটনায় করা দুই মামলার বিচারকাজ শেষ পর্যায়ে। যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রাষ্ট্রপক্ষ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, সাবেক প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সাবেক উপমন্ত্রী আবদুস সালাম পিন্টুসহ ৪১ আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে আবেদন জানিয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা মনে করছেন, আগামী মাসে মামলার রায় হতে পারে। এখন সর্বশেষ আসামি লুৎফুজ্জামান বাবরের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলছে।

ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিশেষ এজলাসে সপ্তাহে তিন দিন করে মামলার কার্যক্রম চলছে। মামলায় মোট সাক্ষী করা হয় ৪৯১ জনকে। এর মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষ ২২৫ জনের সাক্ষ্য উপস্থাপন করেছে। আসামিপক্ষে হাজির করা হয় ১২ জন সাক্ষী। এই মামলায় তারেক রহমান ও প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১৮ জন পলাতক রয়েছেন। তাঁদের অনুপস্থিতিতে বিচারকাজ চলছে।

এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলি সৈয়দ রেজাউর রহমান গত রোববার প্রথম আলোকে বলেন, মামলার বিচার শেষ পর্যায়ে। এখন আসামি বাবরের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলছে। এরপর রাষ্ট্রপক্ষ এক বা দুই দিন আইনগত জবাব দেবে। রাষ্ট্রপক্ষ যেদিন শেষ করবে, আইন অনুযায়ী ওই দিনই আদালত রায়ের তারিখ ধার্য করবেন। রেজাউর রহমান বলেন, ‘বাবরের বাকি যুক্তিতর্ক যদি চার থেকে সাত কার্যদিবসে শেষ হয়, তাহলে সেপ্টেম্বরে রায় হবে বলে আশা করছি।’

বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন