Select Page

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে রাজধানীর পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করা হয়েছে। মামলাটি দায়ের করেছেন ইলিয়াস হোসেন নামের একজন, যিনি নিজেকে সংগীতশিল্পী হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন।

রোববার (১৮ এপ্রিল) মামলাটি দায়ের করা হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক।

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার অভিযোগে নুরুল হকের বিরুদ্ধে এ নিয়ে দুটি মামলা হলো। শাহবাগ থানায় অপর মামলাটি করেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মো: আশরাফুল ইসলাম সজীব।

পল্টন থানায় দায়ের করা মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে, ১৪ এপ্রিল নুরুল হক তার ফেসবুক পেজ থেকে বক্তব্য দেন। এতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত হানে, এমন আপত্তিকর, আক্রমণাত্মক বক্তব্য দেন।

আরোপড়ুন– অক্সফোর্ডের টিকা নিলেন জার্মান চ্যান্সেলর ম্যার্কেল

তিনি এজাহারে নুরুল হকের বক্তব্যের কিছু অংশ উদ্ধৃত করেন। তিনি বলেন, নুরুল হকের ওই বক্তব্যের নিচে অনেকে লাইক দিয়েছেন ও মন্তব্য করেছেন। ওই সব মন্তব্যের ভেতর ‌সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য আছে।

ইলিয়াস হোসেনের অভিযোগ, নুরুল হকের এই বক্তব্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অসংখ্য ধর্মপ্রাণ মুসলমান কর্মী-সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে আঘাত হানে। নুরুল হকের বক্তব্যের উদ্দেশ্য ছিল দেশের সামগ্রিক আইনশৃঙ্খলার অবনতি, বিভিন্ন সম্প্রদায় ও শ্রেণীর মধ্যে শত্রুতা, বিদ্বেষ ও ঘৃণা সৃষ্টি করা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করা, অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা।

ইলিয়াস আরো বলেন, নুরুল হক ও তার সহযোগী-সমর্থকদের আইনের আওতায় আনা গেলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অসংখ্য ধর্মপ্রাণ মুসলমান কর্মী-সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধ ও দেশের সামগ্রিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা সম্ভব হবে।

বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন